নিজেই বানাই নিজের সাইট - পর্ব ০৫ - থিম আপলোড এবং থিম কাস্টোমাইজ কিভাবে করব??

নিজেই বানাই নিজের সাইট - পর্ব ০৫ - থিম আপলোড এবং থিম কাস্টোমাইজ কিভাবে করব??

স্বাগতম আপনাকে "নিজেই বানাই নিজের সাইট " সিরিজের ৫ম পোস্টে। আজকে আমরা থিম আপলোড এবং কাস্টোমাইজ করা শিখব। আমি এখানে আপলোড করেছি "Sora Ribbon Premium Template"।



এটার ফ্রি ভার্সন ও আছে, তবে ফ্রি ভার্সন এ ফুটার ক্রেডিট সহ অনেক ঝামেলা থাকে। তাই, ভালো হয় যদি অল্প কিছু টাকা দিয়ে একটা থিম কিনে ফেলতে পারেন। তবে, এক্ষেত্রে আমাদের ইন্টারন্যাশনাল কার্ড বা পে করার সেরকম সুযোগ না থাকলে থিম কেনা সম্ভব হয় না।

তাই, এই পোস্টের একদম শেষে কিভাবে ফ্রিতে একটি হাই লেভেল প্রিমিয়াম থিম পাবেন সেটা নিয়ে আলোচনা আছে। অবশ্যই আমি কোনো ক্রাক থিম এর কথা বলছি না, একদম কেনা আসল থিম।
ওকে, এখন দেখে নেই কি কি শিখেছি এ পর্যন্ত

১। ব্লগার পরিচিতি এবং একাউন্ট তৈরি
২। ব্লগার ট্যাব পরিচিতি
৩। পোস্ট করা এবং সাধারন সেটিংস
৪। ডোমেইন কেনা
৫। ডোমেইন এড করা




আর আজকে শিখবো থিম আপলোড এবং কাস্টোমাইজ। তবে, তার আগে চলুন আপানদেরকে এই সিরিজের সিলেবাস টা একবার দেখাই। প্রথম পোস্টেই যদিও এটা দেখানোর দরকার ছিল তবে আমি ভুল করে সেটা এড়িয়ে গেছি।




দেখতেই পারছেন এখানে চারটা চ্যাপ্টার আছে এবং প্রথম চ্যাপ্টার আজকেই শেষ হচ্ছে। এবং পরবর্তী চ্যাপ্টার গুলোর পোস্ট এভাবেই চলতে থাকবে।

ওকে, এই নিয়ে পোস্টের শেষে আরো আলোচনা আছে তবে এখন মুল কথায় আসি


কোন থিম ??

গুগলে গিয়ে লিখুন "Free Blogger Theme Download" তাহলে অনেক ফ্রি থিম পেয়ে যাবেন। সেখান থেকে যেকোন একটা ব্যবহার করলেই হল।
আপলোড করব কিভাবে ??

ধাপ-১

প্রথমেই যেই থিম ডাউনলোড করেছেন সেই ফোল্ডারে গিয়ে একটা .xml ফাইল পাবেন যেটা হচ্ছে ব্লগারের থিম। সেই ফাইল এর সাথে থিম এর নাম থাকবে। ওই ফাইল টা Notepad অথবা এরকম কোনো টেক্সট এডিটরের মাধ্যমে ওপেন করে সম্পুর্ন কোড কপি করুন।


ধাপ-২

এবারে ব্লগার ড্যাশবোর্ড এ প্রবেশ করুন এবং Theme Tab এ ক্লিক করুন। তারপর, Edit HTML এ ক্লিক করুন এবং তখন পুরো থিমের কোড আসবে। সবগুলো কোড কেটে দিন এবং কপি করা ওই কোড পেস্ট করে দিন।


পেস্ট করার পরে Save Theme এ ক্লিক করে সেভ করুন। ( কোড কেটে পেস্ট করা এবং সেভ করার স্ক্রিনশট দেয়া হয় নি, দুঃখিত )।

উপরের স্ক্রিনশট এ দেয়া ২ নাম্বার Customize দিয়ে থিম এর বিভিন্ন পরিবর্তন করা যায় তবে এখন প্রয়োজন নেই ইচ্ছা হলে নিজেরা একটু ঘাটাঘাটি করুন।



বিঃদ্রঃ থিম চেঞ্জ করে আগের থিমে ব্যাক করার জন্য ঐ ৪ দিয়ে মার্ক করা Backup/Restore এ ক্লিক করে থিম ডাউনলোড করে নিন। এটা আপনার বর্তমান থিম। কোনো সমস্যা হলে পরে রিস্টোর করে দিতে পারবেন।

থিম কাস্টোমাইজ




ধাপ-১

প্রথমে ব্লগার ড্যাশবোর্ড থেকে Layout এ ক্লিক করুন এবং নিচের মতো পাবেন।

এখানে পুরো ওয়েব সাইট ম্যানেজ করার ব্যবস্থা আছে। এই যে একেকটা বক্স এর মতো এগুলোকে বলে Widget। আপনারা এই Widget চেঞ্জ করতে পারবেন।


ধাপ-২

Widget চেঞ্জ করার জন্য নিচের স্ক্রিনশট ফলো করুন।

প্রথমে যেই Widget চেঞ্জ করবেন সেটার পাশের পেন্সিল আইকনে ক্লিক করুন। তাহলে একটা নতুন উইন্ডো চলে আসবে। সেখানে চেঞ্জ করার প্রয়োজনীয় ফাংশন পাবেন।

ইচ্ছামতো চেঞ্জ করে নিয়ে Save এ ক্লিক করুন। এবং Save এ ক্লিক করলে এই উইন্ডো চলে যাবে এবং তখন Save Arrangement এ ক্লিক করে পুরো Layout সেভ করে নিন।

কোনো Widget বাদ দিতে চাইলে এখান থেকে Save এ ক্লিক না করে Remove এ ক্লিক দিন।



বিঃদ্রঃ- Widget কে অনেকসময় Gadget ও বলা হয়।

ধাপ-৩

নতুন কোনো Widget তৈরি করতে চাইলে Add a Gadget এ ক্লিক করুন।




আবার, যদি কোনো Widget এর অবস্থান পাল্টাতে চান তাহলে Widget এর বাম পাশের যে ডট ডট দেয়া আছে ধুসর রং এ সেখানে চেপে ধরে প্রয়োজনীয় স্থানে নিয়ে ছেড়ে দিলেই হবে।

এভাবেই, আমরা থিম আপলোড এবং কাস্টোমাইজ করতে পারি।



এটা শুধু দেখানো হল কিভাবে করতে হয় যদি স্পেসিফিক কোনো সমস্যা হয় তাহলে কমেন্টে লিখতে পারেন অথবা মেইল করতে পারেন Contact পেজে গিয়ে অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন। ইনশাল্লাহ, শতভাগ সমস্যার সমাধান দেয়া হবে।

এবারে আসি, সিরিজ সম্বন্ধে কিছু গুরত্তপুর্ন বিষয় নিয়ে। আগে একটা গল্প বলি,

আপনি কোনো একটা স্কুলের কোনো একটা বিষয় নিয়ে ৭ দিনের কোর্স করাবেন কিন্তু সেখানে শিক্ষার্থী আছে সবমিলে ১০/১২ জন। তার মধ্যে নিয়মিত আবার ৪/৫ জন। তাহলে কি আপনার কোর্স নিতে ভালো লাগবে??




নিশ্চয় না, আমারও সেরকম সমস্যা হচ্ছে। আমি প্রত্যেক পোস্ট লিখতে সময় লাগে প্রায় ২/৩ ঘণ্টা। স্ক্রিনশট সহ অন্যান্য কাজে আরো লাগে। তবে প্রত্যেকদিন নিয়মিত ৩ ঘণ্টা সময় দিয়ে একটা সিরিজ চালানো খুব কষ্ট।

পোস্ট লেখায় যায় বিভিন্ন বিষয়ে কিন্তু একটা বিষয়ে সিরিজ লেখা বেশ ঝামেলার। তবে, সেই ঝামেলা থাকে না যখন অনেকে শিখতে থাকে।

তাই, আমার অনুপ্রেরণা হিসেবে যদি অনেকে এই সিরিজ করে তবে এই কষ্ট লাঘব হয়। চলুন দেখায় কতজন নিয়মিত শিখে


এই হচ্ছে অবস্থা। আমি কিন্তু বলছি না আমার পোস্ট খুব ভালো হয় তাই দেখতেই হবে। দেখানোর কারণটা হচ্ছে যখন আমি এডসেন্স মাত্র ৩ দিনে কিভাবে পেয়েছি এই নামে পোস্ট লিখেছিলাম সেটার ভিজিটর ছিল ২,০০০+ শুধু তাই না ট্রিকবিডিতেও এই পোস্টটার ভিউ ছিল ২,০০০+ ।

আমি এটাই বোঝাতে চাচ্ছি যে, আমরা ফলাফল টা দেখতে চাচ্ছি কিন্তু সেটা পেতে যেই পরিশ্রম করতে হবে সেটা করতে রাজি না। এভাবে করলে কিন্তু সম্ভব না।

আমার ভিউ হল কি না তাতে কিছু যায় আসে না মুল ব্যাপার হচ্ছে আমাদের শিখতে হবে।
আর, তাই আমি একটা সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

আজ থেকে আগামী ১৭ - ০৯ - ২০১৯ পর্যন্ত একটা ব্রেক থাকবে এটার দুইটা কারন আছে।

১। যেহেতু এখন ব্লগ রেডি তাই কমপক্ষে ৭/৮ টা পোস্ট মোটামুটি লিখতে হবে। তা না হলে SEO করা হবে না। আমি চাচ্ছি সবাইকে লাইভ টিউটোরিয়াল দিতে অর্থাৎ হাতে হাতে কাজ করতে এজন্য পোস্ট প্রয়োজন। তাই এই ব্রেকে আপনি পোস্ট লিখে পাবলিশ করবেন এবং ২য় চ্যাপ্টারে সেটার উপরেই SEO করা হবে।

২। এই ব্রেকের মধ্যে একটা অফার চলবে। সেই অফারের জন্য এই ৩ দিনের ব্রেক থাকবে। নিচে বিস্তারিত

কিসের অফার??

আপনার নিশ্চয় একটা থিম প্রয়োজন এবং সেটা প্রিমিয়াম হতে হবে।

তাই, আমি ঠিক করেছি একটা প্রতিযোগিতা হবে এবং সেখানে যারা যারা অংশগ্রহণ করবে ( হ্যাঁ, বিজয়ী নয় অংশগ্রহণ করলেই হবে ) তাদের জন্য ফ্রিতে আমি একটা প্রিমিয়াম থিম দিবো।

প্রতিযোগিতা কেমন??

  1. প্রথমে আপনাকে এই সাইটের অর্থাৎ "Shovon's Diary " এর সম্পর্কে কমপক্ষে ৩০০ শব্দের একটা রিভিউ লিখতে হবে।
  2. কোনো একটা পোস্ট সম্বন্ধে লিখলে হবে না পুরো সাইট সম্পর্কে, তবে কোনো একটা পোস্টকে হাইলাইট করা যেতে পারে।
  3. এবারে, আপনার ফেসবুক প্রোফাইল এর পোস্ট অপশন পাব্লিক করতে হবে এবং সেখান থেকে এই রিভিউ পোস্ট করতে হবে।
  4. আপনি এড আছেন এমন ২ টা গ্রুপ এ গিয়ে এই রিভিউ পোস্ট করবেন। অবশ্যই প্রত্যেকটা পোস্ট এপ্রুভ হতে হবে। আপনিও গ্রুপ ছাড়াও পেজে একই কাজ করতে পারেন।

রিভিউ এর নিয়ম

  1. রিভিউ কমপক্ষে ৩০০ শব্দের হবে। বেশি হলে সমস্যা নেই।
  2. রিভিউ এর শেষে কিংবা প্রথমে #sd_shovons_diary লেখাটা থাকতে হবে।
  3. আপনার একাউন্ট এ কমপক্ষে ৩০০ ফ্রেন্ড থাকতে হবে।
  4. আপনার পোস্ট পাবলিক হতে হবে।
  5. আপনি যে যে গ্রুপে পোস্ট করবেন তাদের মেম্বার কমপক্ষে ৫০০ হতে হবে।

প্রতিযোগী কিভাবে বাছাই হবে??

  1. ফেসবুকে #sd_shovons_diary লিখে সার্চ করে পোস্ট এবং প্রতিযোগী খুজে নেয়া হবে।
  2. পোস্ট শেষে এই পোস্টের নিচে কমেন্টে লিখে জানাতে পারেন না লিখলেও সমস্যা না।

কাদের কি পুরষ্কার দেয়া হবে??

  1. যারা যারা উপরের নিয়ম অনুযায়ী পোস্ট করবেন এবং খুঁজে পাওয়া যাবে তাদের সবাইকে থিম দেয়া হবে। এবং আপনি ইচ্ছামতো একটা থিম বাছাই করে দিবেন আমি সেটা কিনে ( কেনার প্রমান সহ) আপনাকে মেইল করে দিব।

প্রতিযোগিতার সময়??

আগামী ১৭ তারিখ পর্যন্ত সময়। এর মধ্যে পোস্ট করলেও হবে আবার এর পরে করলেও হবে। যখন খুশি আপনি পোস্ট করতে পারেন।

এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে প্রমান হবে কতজন এক্টিভ লার্নার এবং তাদের কে থিম দেয়া হবে।
যদি মনে হয় এটার পেছনে আমার গুপ্ত কোনো লাভ আছে তবে সেটা হচ্ছে ভিউ বেশি হবে।

আর অনেকে ভাবেন বেশি ভিউ মানে বেশি টাকা এটা ভুল, আপনি এডসেন্স পেলেই সেটা টের পাবেন।

আপনাদের যদি এরকম কিছু ভালো না লাগে তবে কমেন্টে বললে আমি এই প্রতিযোগতা বাদ দিয়ে দিব এবং এভাবেই পোস্ট করতে থাকবো তবে সেক্ষেত্রে আপনাকে থিম দেয়া হবে না।

ওকে, আমি জানি আজকে মুল বিষয় বাদ দিয়ে অন্যান্ন কথাই বেশি হয়েছে এজন্য সত্যি দুঃখিত। ক্ষমা করে দিবেন দয়া করে।

যেকোন সমস্যায় কমেন্টে জানান এবং বন্ধুদের শেয়ার করে জানিয়ে দিন।।

Post a Comment

4 Comments

  1. আমাদের নতুন সাইট কিছু Author/Editor নেয়া হবে rainbd.xyz

    ReplyDelete
  2. Assalamualaikum Vai...apnr sate Ami ekto jogajog korte cai Vai..apnr fb I'd ba WhatsApp number Daya jabe Vai?

    ReplyDelete
  3. next part den na kno vai

    ReplyDelete