আত্মউন্নয়নের জন্য সেরা চারটি বাংলা বই

আত্মউন্নয়নের জন্য সেরা চারটি বাংলা বই

আত্মউন্নয়ন শব্দের সঙ্গে সবাই আমরা পরিচিত। নিজেকে উন্নতির চুড়ায় পৌঁছে দেয়ার কার্যক্রমকে বলা হয় আত্মউন্নয়ন। আর এই কার্যক্রমের সবথেকে বড় হাতিয়ার হচ্ছে বই। যদিও বর্তমান প্রজন্ম বই এর পাতায় মুখ না গুঁজে নীল স্ক্রিনের সামনে বসে থাকে। যতই আধুনিক হোক না কেন, বইয়ের পাতার গন্ধটা তো আর স্ক্রিনে মেলে না। তাই, বই চির সবুজ, চির নতুন। আর আজকে সেরকমই ৪ টি বই নিয়েই কথা বলব যেগুলো আত্মউন্নয়নে আপনাকে করে তুলবে দক্ষ। বই গুলো সম্পর্কে জানতে এখনই পড়ে ফেলুন নিচের লেখাটি।


১. রিচ ড্যাড, পুওর ড্যাড

লিস্টের প্রথমেই থাকা উচিৎ এই বইটা। ইংরেজি লেখকের বই হলেও অনুবাদক বইটাকে বাংলাতে তুলে ধরেছেন অপরূপ ভাবে। যদি প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি বাস্তব শিক্ষায় শিক্ষিত হতে চান তাহলে এই বইটা মাস্ট। আপনি এখান থেকে শিখবেন অর্থনীতির ভিত্তি যা বাস্তব জীবনে আপনাকে সাহায্য করবে। বইটার ট্যাগ লাইন টাই অনেক সুন্দর “ধনীরা তাদের সন্তানদের টাকা পয়সার ব্যাপারে কী শেখায়, যা গরীব আর মধ্যবিত্ত শ্রেণি শেখায় না।”
বইটির অনেক সুন্দর সুন্দর রিভিউ দিয়েছেন অনেক বিখ্যাত ব্যক্তি, তবে এটা রিভিউ ছাড়াও বলা যায় যে যদি অর্থনৈতিক ভাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করতে চান তাহলে এই বইটা আপনার জন্য। বইটা আপনাকে কোনো গোপন সম্পদের সন্ধান দেবে না ঠিকই তবে গোপন তথ্য দেবে যা আপনাকে প্রতিষ্ঠান শেখায় না।

সংক্ষিপ্ত বর্ননা

নামঃ- রিচ ড্যাড, পুওর ড্যাড
লেখকঃ- রবার্ট টি কিয়োসাকি
বাংলা অনুবাদঃ- ডঃ জয়শ্রী বন্দ্যোপাধ্যায়
শেষ প্রকাশঃ- ২০১৩
পার্সোনাল রিভিউঃ- ৪/৫
আচ্ছা, আমার মনে হয় না আর কোনো বর্ননা দেয়ার প্রয়োজন আছে। এই রকমারি লিংক থেকে বইটা সংগ্রহ করে নিয়ে নিজেকে উন্নতির শিখরে পৌঁছে দিন।

২. দা আলকেমিস্ট

এটাও একটা বিদেশি বইয়ের অনুবাদ। এটা আপনাকে শেখাবে নিজের লক্ষ্যের উপরে কীভাবে দৃঢ় থাকতে হয়। এখানে মুলত একজন ছেলে সান্তিয়াগো কে নিয়ে মুল কাহিনী গড়ে উঠেছে যে তার স্বপ্নগুলোকে বাস্তবায়নের চেষ্টা করে। কিন্তু, সবার ধোঁকায় পড়ে সে বারবার বিফল হয় কিন্তু নিজের উপর আস্থা রাখায় সে শেষ পর্যন্ত জয়ী হয়। আমার বেশ ভালো লেগেছে বইটা কারণ, এখানে সহজ ভাষায় অনেক কিছু বর্ননা করা আছে যেগুলো আমাদের সফলতার চূড়ান্তে পৌছাতে সাহায্য করবে।



সংক্ষিপ্ত বর্ণনা

নামঃ- দা আলেকমিস্ট
লেখকঃ- পাওলো কোয়েলহো
বাংলা অনুবাদঃ- মাকসুদুজ্জামান খান
শেষ প্রকাশঃ- ১৯৯২
পার্সোনাল রিভিউঃ- ৩.৮/৫
এই বইটা আন্তর্জাতিক বেস্ট সেলার। তাই, বেশি কিছু বলার প্রয়োজন বোধ করছি না। জাস্ট সংগ্রহ করুন আর লেগে পড়ুন।

৩. প্যারাময় লাইফের প্যারাসিটামল

আমার প্রিয় লেখকগুলোর মধ্যে একজন হচ্ছেন “ঝংকার মাহবুব”। সহজ ভাষায় আনন্দের সাথে কোনো কিছু শেখানোর যার জুড়ি নাই তিনি হচ্ছেন ঝংকার ভাই। প্যারাময় লাইফের প্যারাসিটামল বইটার নামই বলে দেই বইটার কন্টেন্ট সম্পর্কে। আপনার লাইফের সব প্যারাগুলোকে লাইফ থেকে রিমুভ করে দিতে বেস্ট বই হবে এটা নিশ্চিত। আপনি যদি বই এর গম্ভীর ভাষা পছন্দ না করেন তাহলে এই বই টা আপনারই জন্য। বইটা আপনাকে বেশ কিছু হ্যাকস শেখাবে যা আপনার জীবনকে করবে সহজ। টাইম অডিট, টাইম ম্যানেজমেন্ট এর মতো অনেক অনেক টুলস পাবেন বইটিতে। তাই, নিজের জীবনের প্যারাগুলোকে Recycle bin এ না ফেলে পারমানেন্টলি ফেলতে চাইলে বইটা হবে বেস্ট এভার চয়েস।।

সংক্ষিপ্ত বর্ণনা

নামঃ- প্যারাময় লাইফের প্যারাসিটামল
লেখকঃ- ঝংকার মাহবুব
শেষ প্রকাশঃ- ২০১৯ ( আদর্শ প্রকাশনী )
পার্সোনাল রিভিউঃ- ৪.৩/৫
বইটার জ্ঞান গুলোকে কাজে লাগালে জীবনে সফলতা মাস্ট!! গেট অন রকমারি.কম এন্ড জাস্ট অর্ডার ইট।

৪. ভাল্লাগে না

আমার লিখতে ভাল্লাগছে না!! আমার পড়তে ভাল্লাগছে না, আমার শিখতে ভাল্লাগছে না।। আমার শুধু ফেসবুকে স্ক্রল করতে ভাল্লাগছে!! উফফস!! এসব কথা আজকাল খুব সাধারণ। আর এসব ভালো না লাগার রোগ গুলোর প্রতিষেধক নিয়ে হাজির হয়েছেন আয়মান সাদিক ( টেন মিনিট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা ) এবং অন্তিক মাহমুদ । ভালো না লাগার কারণ এবং সেগুলোর সব ঔষধ আছে বইটাতে। কেন ভাল্লাগে না কি করলে ভাল্লাগবে সব বলা আছে একদম সরাসরি। এখানে আছে ফাঁকি না মারার আর্ট, পড়ায় ভালো লাগার উপায় এক কথায় জত্ত ভাল্লাগে না আছে সবকিছুর ঔষধ এটা।



সংক্ষিপ্ত বর্ণনা

নামঃ- ভাল্লাগে না
লেখকঃ- আয়মান সাদিক এবং অন্তিক মাহমুদ
শেষ প্রকাশঃ- ২০১৯ ( আদর্শ প্রকাশনী )
পার্সোনাল রিভিউঃ- ৪.২/৫

এই তো আর কি বলব?? নিজেকে উন্নতির শিখরে তুলে আনতে বইগুলো যথেষ্ট। তবে, একটা কথা কেউ যেন কমেন্টে এটা জিজ্ঞাসা করবেন না যে আমি সফল হয়েছি কিনা। কারণ, আমি আমার জায়গা থেকে সফল, অন্যকারোর দৃষ্টি থেকে যদিও বড্ড ব্যর্থ।।

সবগুলো বইয়ের রকমারি লিংক দিয়েছি ওই লিংকে প্রবেশ করে পছন্দ মতো দেখে শুনে কিনে ফেলুন। রকমারি থেকে বইগুলোর প্রথম কিছু অংশ ফ্রিতে পড়তেও পারবেন।

ওকে, আজকের মতো এখানেই শেষ। আবার দেখা হবে অন্য কোনো পোস্টে অন্য কোনো বিষয় নিয়ে। আর যদি কোনো আদেশ-উপদেশ বা গালি দেয়ার ইচ্ছে হয় তাহলে, কমেন্টে বলা শুরু করুন।

বন্ধুদের জানানোর জন্য লেখাটি শেয়ার করতেও পারেন।

Post a Comment

0 Comments